সরিষাবাড়ীতে পরিবার পরিকল্যান সহকারীর বিরুদ্ধে মহিলাদের সম্মতি ছাড়াই ইমপ্ল্যান্ট করানোর অভিযোগ


তৌকির আহাম্মেদ হাসু ,সরিষাবাড়ী(জামালপুর) প্রতিনিধি :

ছেলে হোক মেয়ে হোক, দুটি সন্তানই যথেষ্ট, পরিবার পরিকল্পনা সেবা গ্রহন করি কিশোরকালীন মাতৃত্ব রোধ করি এ প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে সরিষাবাড়ীতে ৭-১২ ডিসেম্বর পরিবার পরিকল্যান সেবা সপ্তাহ ২০১৯ অব্যাহত রয়েছে।পরিবার কল্যান সপ্তাহের ২য় দিনে জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে পরিবার পরিকল্যান সহকারী কামরুন্নাহার এর বিরুদ্ধে মহিলাদের সম্মতি ছাড়াই পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ইমপ্ল্যান্ট করানোর অভিযোগ উঠেছে। রোববার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ধেসঢ়;্রর পরিবার পরিকল্পনা অপারেশন থিয়েটারে এ ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগকারী সরিষাবাড়ী উপজেলার আওনা ইউনিয়নের তরুণী আটা গ্রামের চান মিয়ার স্ত্রী রিনা বেগম.একই গ্রামের সুরুজ্জামানের স্ত্রী রোজিনা বেগম,আব্দুল হামিদের স্ত্রী লাভলী বেগম কে ৩ বছর পূর্বে পরিবার পরি কল্পনা পদ্ধতি ইমপ্ল্যান্ট গ্রহন করেন। তাদের তিন বছর ইমপ্ল্যান্ট পদ্ধতি শেষ হওয়ায় গতকাল রোববার কাঠি খুলতে আসেন।

পক্ষান্তরে উপজেলার আওনা ইউনিয়নের বাটিকামারী ব্লকের পরিবার পরি কল্যান সহকারী(এফ ডব্লিউ ভি) কামরুন্নাহার উক্ত তিন মহিলাদের কাছ থেকে পূর্ব অনুমতি না নিয়েই পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ইমপ্ল্যান্ট পদ্ধতি কাঠি পরিয়ে দেন। এ বিষয়ে ওই মহিলাগন তাদের অনুমতি ব্যাতি রেখে ইমপ্ল্যান্ট পদ্ধতি দিয়ে অপারেশন রুম থেকে বের করে দেয়।এ সময় ওই তিন মহিলা কান্নাকাটি সহ ক্ষোভে পরিবার পরিকল্যান সহকারী কামরুন্নাহার তোপের মুখে পড়েন। ওই তিন নারীকে হৈ চৈ করতে হাসপাতালে সেবা নিতে আসা লোকজনের ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। আরোও জানা গেছে,পরিবার পরিকল্যান সেবা সপ্তাহে পরিবার পরিকল্যান সহকারী কামরুন্নাহার তার র্টাগেট পূরন করতে মহিলাদের পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ইমপ্ল্যান্ট করানো হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যাক্তিরা উপজেলার অনান্য পপরিবার পরিকল্যান সহকারীরাও একই কায়দায় টার্গেট পূরনে মহিলাদের পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি ইমপ্ল্যান্ট করাচ্ছেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

পাঠকের মন্তব্য
আরো পড়ুন