সহজ উপায়ে-সুলভ দামে করোনাভাইরাস পরীক্ষার নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবন

সহজ উপায়ে-সুলভ দামে করোনাভাইরাস পরীক্ষার নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবনের খবর শুনে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে আলাপনের ইচ্ছা সংবরণ করতে পারলাম না। আইইডিসিআরের কাছে এ ভাইরাস পরীক্ষার কিট ছিল মাত্র ২ হাজার। ইতোমধ্যে খরচ হয়েছে ৩শর মতো। সরকার চীনের কাছে ২০ হাজার কিট চেয়েছে। কবে পাওয়া যাবে তা নিশ্চিত নয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা চীনের সরবরাহ করা কিট ব্যয়বহুল এবং তা দিয়ে পরীক্ষার জন্যও প্রয়োজন উন্নত ল্যাবরেটরির। এই পরিস্থিতিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের এই উদ্ভাবন বাংলাদেশের জন্য যুগান্তকারী ঘটনা।

করোনাভাইরাস মোকাবেলার প্রথম সোপান হলো লাখ লাখ মানুষের পরীক্ষা করা। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত নতুন কিট দিয়ে এখন যেকোনো ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে মাত্র ৩শ টাকায় তা পরীক্ষা করা সম্ভব। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদন মিললে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে উৎপাদনে যেতে পারবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। প্রতি মাসে ১ লাখ কিট উৎপাদনের সক্ষমতা আছে তাদের। ডা. জাফরুল্লাহ জানান, ২শ টাকায় তারা এই কিট সরবরাহ করতে পারবে। কিন্তু ল্যাবে গিয়ে পরীক্ষা করতে কোনোভাবেই যেন ৩শ টাকার বেশি খরচ না পড়ে, সরকারকে তা কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। ডা. জাফরুল্লাহর স্বপ্ন সীমাহীন, তিনি আশা করছেন আজকের মধ্যেই (বুধবার) তারা অনুমোদন পেয়ে যাবেন।

লেখক:
আলমগীর নিষাদ, কবি ও সাংবাদিক

পাঠকের মন্তব্য
আরো পড়ুন