উল্লাপাড়ায় ট্রেন দূর্ঘটনায় আগুন বগির ভিতরে লাগাটা সন্দেহজনক- রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন

উল্লাপাড়া প্রতিনিধিঃ মোঃ আব্দুস ছাত্তার

শুক্রবার বিকেলে উল্লাপাড়ায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ঈশ্বরদী-ঢাকা রেলেপথে রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেন দূর্ঘটনার স্থল পরিদর্শনে আসেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। ঘটনাস্থলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, দূর্ঘটনার পর ইঞ্জিনের আগুন বগির ভিতরে লাগাটা সন্দেহজনক। এ ঘটনার সাথে কোন নাশকতা কর্মকান্ড জড়িত কিনা না তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। শুক্রবার বিকেল চারটায় রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেন দূর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে এমন মন্তব্য করেন। দূর্ঘটনার পর ইঞ্জিনের আগুন কিভাবে শীততাপ নিয়ন্ত্রিত বগির ভিতরে ঢুকলো এটা ভাবনার বিষয়। তিনি বলেন, এর আগে ২০১৪ সালে তথাকথিত আন্দোলনের নামে এই এলাকায় একটি ট্রেন আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। উল্লাপাড়ায় ট্রেন দূর্ঘটনার ব্যাপারে ঘটনাস্থলে উপস্থিত রেল সচিব মোফাজ্জল হোসেন বলেন, দূর্ঘটনার কারণ সর্ম্পকে নিশ্চিত কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে ইতিমধ্যেই চারটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে খুব দ্রুতই দূর্ঘটনার আসল কারণ উৎঘাটন করা যাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বৃহস্পতিবার এই লাইনে যারা সংস্কার কাজ করছিল তাদের দু’জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো কালিগঞ্জ গ্রামের আরিফ হোসেন ও মাটি কোড়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক। রেলের একটি সূত্র ধারনা করছে, সংস্কারের কাজে নিয়োজিতরা উল্লাপাড়া ষ্টেশনে ঢোকার সম্মুখ পয়েন্টে বেসপ্লেট খুলে রাখা হয়েছিল। যে কারণে ওই দু’জনকে আটক করা হয়েছে। এ সময় মন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন, রেল সচিব মোফাজ্জল হোসেন, অতিরিক্ত সচিব ফারুকুজ্জামান, পশ্চিম রেলের জেনারেল ম্যানেজার মিহির কান্তি ভৌমিক, জেলা প্রশাসক ডঃ ফারুক আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আরিফুজ্জামান সহ রেলের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ। উল্লাপাড়ায় ঢাকা থেকে রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনটি বৃহস্পতিবার বেলা ২ টা ২ মিনিটে র্দূঘটনার কবলে পড়ে। উল্লাপাড়া ষ্টেশনের চুম্বক পয়েন্টে ইঞ্জিন সহ ট্রেনটির সাতটি বগি লাইনচ্যুত হয়। যার মধ্যে ইঞ্জিন সহ চারটি বগি আগুনে পুড়ে যায়। আহত হয় ২০ জন ট্রেন যাত্রী।

এ দূর্ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখতে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একটি, পশ্চিমাঞ্চল রেল বিভাগের পক্ষ থেকে দুটি এবং সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১টি সহ মোট চারটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই তদন্ত কমিটি আলাদাভাবে তদন্ত কাজ শুরু করেছে।

পাঠকের মন্তব্য
আরো পড়ুন